June 12, 2024
House #1, Road #17, Rupnagar Residential Area, Mirpur, Dhaka-1216
আন্তর্জাতিক

যে ৪ শর্তে পিএসজিতে পিএসজিতে থেকে গেলেন এম্বাপে?

পৌষের পরের মাসটাও যেন পৌষই।সকালে খুশির সংবাদ, আর বিকেলে তা আরো বেশি। এমন রাত পিএসজির ইতিহাসে আর কখনও এসেছে কি না, গবেষণা করা যেতে পারে। একের পর এক সুসংবাদ, পিএসজি ভক্তরা হয়তো হাতে চিমটি কেটেছেন ভেবে যে—এসব স্বপ্ন নয় তো?

কিলিয়ান এমবাপ্পে ঘোষণা দিয়েছেন, রিয়াল মাদ্রিদের প্রলোভন ভুলে ২০২৫ সাল পর্যন্ত প্যারিসেই থেকে যাচ্ছেন। দুদিন আগেও যে খেলোয়াড় চলে যাবেন দেখে পিএসজির সমর্থকদের মন বিষাদে ভরে গিয়েছিল, এমবাপ্পের ঘোষণার পর সেসব সমর্থকদের বুকেই এখন আকাশ ছোঁয়া সাহস আর আত্মবিশ্বাস। ঘরের ছেলে যে ঘরেই থাকছেন! শুধু ঘরে থেকে যাওয়ার ঘোষণাই দেননি, মেৎসের বিপক্ষে দুর্দান্ত এক হ্যাটট্রিক করে বুঝিয়ে দিয়েছেন, কেনই বা রিয়াল তাঁকে দলে নেওয়ার জন্য এত পাগল হয়ে গিয়েছিল, পিএসজিই বা কেন তাঁকে ধরে রাখার জন্য রিয়ালের চেয়েও বেশি ব্যাকুল হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু রিয়াল মাদ্রিদের মতো একটা বড় ক্লাবের প্রলোভন ছেড়ে এমবাপ্পে কেন পিএসজিতে থেকে গেলেন? এই বিষয়ে বিস্তারিত থাকছে প্রতিবেদনে…।।

 

সবার আগে টাকার ব্যাপারটাই নজরে আসবে। এমবাপ্পেকে যে অবিশ্বাস্য পরিমাণ বেতন আর বোনাসের আশ্বাস দিয়েছে পিএসজি, তাতে সদ্য মুখে বুলি ফোটা শিশুটিও বুঝতে পারবে, ছোটবেলার পছন্দের ক্লাবে না গিয়ে পিএসজিতে থেকে যাওয়ার পেছনে মূল অনুঘটক কী হতে পারে। শুধু আকাশচুম্বী বেতন-বোনাসই নয়, আরও বেশ কিছু শর্তে এমবাপ্পে পিএসজির সঙ্গে নিজের ভবিষ্যৎ দীর্ঘায়িত করেছেন বলে খবর বের হয়েছে। খবর দিয়েছেন ইএসপিএনের ফরাসি ফুটবলবিষয়ক নির্ভরযোগ্য সাংবাদিক ইউলিয়ান লরেন্স। শর্তগুলো কী কী? দেখে নেওয়া যাক – লিওনার্দোর বিদায় এমবাপ্পের সঙ্গে পিএসজির ক্রীড়া পরিচালক লিওনার্দোর সম্পর্ক ঠিক সহজ-স্বাভাবিক নয়, এ আগের খবর। নতুন চুক্তিতে সই করার আগে এমবাপ্পে শর্ত দিয়েছেন, লিওনার্দোকে সরিয়ে অন্য ক্রীড়া পরিচালক আনতে হবে। পিএসজিও রাজি হয়ে গিয়েছে একবাক্যে। লিওনার্দোর সঙ্গে এমবাপ্পে কাজ করতে রাজি নন, শুধু তাই নয়, ক্লাবের পরবর্তী ক্রীড়া পরিচালক হিসেবে লুইস কাম্পোসের নাম প্রস্তাব করেছেন এমবাপ্পে।

এই কাম্পোস জোসে মরিনিওর আমলে বেশ কিছুদিন রিয়ালের হয়ে স্কাউট হিসেবে কাজ করেছিলেন। শুধু তাই নয়, মোনাকো আর লিলের মতো ক্লাবের লিগ জেতার পেছনে ফুটবল পরিচালক হিসেবে তাঁর মস্তিষ্কের অবদানও ছিল অনেক। এমবাপ্পে তাঁকেই চাইছেন পিএসজিতে। তবে কাম্পোসের মতো স্বাধীনচেতা মানুষ পিএসজির প্রস্তাব গ্রহণ করেন কি না, সেটা একটা প্রশ্ন। নেইমারের বিদায়, দেম্বেলের আগমন লরেন্স জানিয়েছেন, এমবাপ্পে চান না নেইমার পিএসজিতে থাকুন। গত কয়েক বছর ধরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ দুজনের দহরম-মহরম আর বন্ধুত্বের প্রচুর ছবি ঘোরাফেরা করলেও, লরেন্সের খবর উল্টোটা ভাবতেই বাধ্য করছে এখন। নির্ভরযোগ্য স্প্যানিশ সাংবাদিক সের্হিও সান্তোসও জানিয়েছেন, এমবাপ্পের পিএসজিতে থাকার পেছনে এই শর্তও কাজ করছে।

নেইমারের জায়গায় বার্সেলোনা থেকে ফ্রি ট্রান্সফারে এমবাপ্পের স্বদেশি উইঙ্গার উসমান দেম্বেলেকে যেন আনা হয়, এমন আবদারও নাকি পিএসজির কর্তাব্যক্তিদের কাছে করেছেন এমবাপ্পে। পচেত্তিনো ‘আউট’, জিদান ‘ইন’ পিএসজির কোচ হিসেবে মরিসিও পচেত্তিনোর অবস্থান এমনিতেই নড়বড়ে। এমবাপ্পে যেন আরও অনিশ্চিত করে দিলেন তাঁর ভবিষ্যৎ। লরেন্স জানিয়েছেন, পিএসজির নতুন কোচ হিসেবে জিনেদিন জিদানকে চাইছেন এমবাপ্পে, অর্থ একটাই – পচেত্তিনোর বিদায়!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *